বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২ অক্টোবর ১৯৭০
গল্প/কবিতা: ১৩টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৪৯

বিচারক স্কোরঃ ২.৪৭ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.০২ / ৩.০

গোধূলি বেলার চোর

ঘৃণা সেপ্টেম্বর ২০১৬

জেগে উঠ্ আরেকবার

মুক্তিযোদ্ধা ডিসেম্বর ২০১২

নিষ্পাপ সারল্য

সরলতা অক্টোবর ২০১২

বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী (নভেম্বর ২০১২)

মোট ভোট ১৩১ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৪৯ ভবের মৃত্যুযজ্ঞ

জাফর পাঠান
comment ৫৪  favorite ৪  import_contacts ৭৪৮
প্রকৃতির নিষ্ঠুর আঘাতে যখন মাটি কম্পমান
রক্তচোষা ডাইনীর মত চুষে নেয় মাটির নির্যাস
দেখি থরে থরে সাজানো সবুজের মৃত লাশ
শুনি মানুষ,প্রকৃতি,জীবকুলের দীর্ঘ নিঃশ্বাস
একপ্রান্তে অনাহার,অর্ধাহার, মৃত্যুর কোরাস
অন্য প্রান্তে তখন খাদ্য অপচয়ের বিলাস।

অতঃপর দেখি পানির নির্মমতা ভাষায় জনপদ
হিংস্রতার ছোবলে ভাঙ্গে প্রযুক্তির যত অহংকার
পানির প্রাবল্যে হয় খাদ্য হারা ভাঙ্গে সংসার
কি এক প্রতিহিংসায় জীবজগৎকে করে সংহার
মাটি,পানি,বাতাস আর লাশ মিলে হয় একাকার।

আগ্নেয়গিরির তান্ডব তথা মাটির রাক্ষুসে কম্পন
করে বিজ্ঞানীদেরকে ভস্ম,আবিস্কারকে ধ্বংস
মুহূর্তের সাজানো বাগান তরিতে তাতানো ভস্ম
প্রযুক্তির অসহায়ত্বের করুণ চাহনি খুজে ভবিষ্য।

জীবন ধারক বাতাস যখন হুঙ্কারে হানে আঘাত
অন্ধ বধির হয়ে চালায় প্রলয় হয়ে যায় হন্তারক
ভাবি জীবনের অনুগ্রাহক কিভাবে হয় অঙ্গারক।

আমার হৃদয় চোখের জলও কেঁদে কেঁদে বলে
আমি দেখে ভাসি আর তোমাকেও ভাসাই জলে।

মন বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী যত্রতত্র গেঁথে চলে।

আছে কি কোন বৈজ্ঞানিক সুত্র ?
যা এই ধ্বংসকে থামাতে পারে ?
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন