বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২৫ মে ১৯৯৫
গল্প/কবিতা: ৪টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

কবিতা - অধরা (জানুয়ারী ২০১৭)

“বিজয়ের মাসের শপথ”

ABDUL AHAD
comment ০  favorite ১  import_contacts ৪৯
চল শপত করি বিজয়ের মাসে চল।
অলক্ষ্যের ধনের করিব না কীর্তন,
যেথায় সেথায় করির না প্রনাম,
মোরা যুদ্ধ করিতে জানি,উত্তাল করে রাজপথ।
হিংসা বিদ্বেষের বিশে তীর ছুড়ি,
দুমড়ে মুচড়ে দেই দূর্বিনীত শালাদের ঘাড়।

চল শপত করি বিজয়ের মাসে চল।
তাড়িয়ে দেই হিংস্র চাপাতির দল।
মুক্ত করি বিদ্যাপঠে অস্ত্রের ঝনঝন,
বন্ধ করি রাজপথে রক্তে থরথর,
অশ্রু ঝরা কান্নার জল থামাই এবার চল।
আর একটি ভোটের জন্য হাঙ্গাম করিব না বল।
আর পদের জন্য একটি মৃত্যু নয় এই শপথ কর।

চল শপত করি বিজয়ের মাসে চল।
নদী-নালা খালবিল ভরাট করিব না বল,
ভন্ড লেবাসধারী নেতার ঘাড়ে লাথি মারি চল।
আর নয় দখলবাজ দলবাজ জঙ্গি এই শপথ কর।
কত সঙ্গোমের বিনিময়ে স্বাধীনতা মনে নাই তর।
সহস্র খরস্রোতা নদে গড়িয়েছিল রক্তের জল।
পাক হায়নার কত বুলেট কেড়েছে তাজা প্রান।
সবুজ মাঠেঘাটে জ্বলন্ত অগ্নিগিরি
এই একাত্তরের দিনগুলি।

রক্তের ফিনকি, চারদিকে উদ্বাস্তুর ছড়াছড়ি!
আর্তনাদের চিৎকার শুনে ছিল কে কার।
বিধবা মায়ের অশ্রু ক্ষত চিন্হ এখন কাল দাগ,
অনাথ সন্তান দেখেছে তার পিতামাতার দুর্বিষহ মৃত্যু।
এত রক্তে বিনিময়ে অর্জিত প্রিয় বাংলাদেশ।
কারো দান দক্ষিণা নয় রক্তে বিনিময় অর্জিত লাল সবুজের পাতাকা।
কারো রক্তচক্ষু মোরা উপেক্ষা করিনা বন্ধ কর সীমান্ত হত্যা।
চল শপত করি বিজয়ের মাসে চল।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন