বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১১ অক্টোবর ১৯৯০
গল্প/কবিতা: ৯টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

২২

হৃদ্যতা টিকিয়ে রাখতে

ভালবাসি তোমায় ফেব্রুয়ারী ২০১৪

পাপমুখে দেশপ্রেমের বুলি

দেশপ্রেম ডিসেম্বর ২০১৩

শূন্যতায় সুখ

শুন্যতা অক্টোবর ২০১৩

ক্ষোভ (জানুয়ারী ২০১৪)

মোট ভোট ২২ নীরব আস্ফালন

ইসহাক খান
comment ১৪  favorite ০  import_contacts ৩৮৫
চোয়াল ঘষে উত্তেজিত,
ক্রোধে অধীর যুবক।
সহসাই ভাবে, গুঁড়িয়ে দেবে বড় জানালার কাঁচ,
কিংবা ক্রিস্টালের ফুলদানি,
নিদেনপক্ষে জলের গেলাস!
করতলে করতল ঘষে ভাবে,
বড় কঠিন নয় প্রকাশের আতিশয্য,
ক্রোধবহ্নি আর জমাট বাঁধা দুঃখ-কষ্ট-ক্ষোভ
নির্দ্বিধায় উগড়ে দেয়া।
না, মোটেই অসম্ভব নয়!

সমস্ত দিন হৃৎপিণ্ডের দ্বিগুণ স্পন্দনকে
কোনমতে সয়ে,
ক্লান্ত-অবসন্ন যুবক
তার তেল-চিটচিটে বালিশে মাথা দিয়ে
নিদ্রা যায়, বিভোর!

আজও সে বলতে পারে নি,
বলতে পারে না,
এবং পারবে না।
তার তপ্ত নোনা অশ্রু তক্তপোষেই শুকোবে,
তার বড্ড ভারী ক্ষোভের পাতাগুলো
অদেখা রয়ে যাবে,
তার অভিযোগের বাক্সের চাবি
আর খুঁজে পাওয়া যাবে না,
নীরব যুবকের অসীম ক্রোধ
বিদ্রূপহাস্যে মলিন হবে,
থিতিয়ে আসবে,
জিজ্ঞাসিত হবে না।
গুমরে যাওয়া যুবক রোজ রাতে
অসহ্য বেদনা-ক্ষোভ-ক্রোধের কশাঘাতে জর্জরিত হয়ে
নিদ্রা যাবার ভান করবে,
বার্ধক্য-জরা-মৃত্যু দোরগোড়ায় এসে দাঁড়ালেও
প্রকাশের ফুরসৎ তার মিলবে না,
ছটফট করে সে স্পন্দিত ক্ষোভকে লুকোবার
প্রয়াস চালিয়ে যাবে।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন