বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১১ অক্টোবর ১৯৯০
গল্প/কবিতা: ৯টি

সমন্বিত স্কোর

১.৯৫

বিচারক স্কোরঃ ০ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৯৫ / ৩.০

হৃদ্যতা টিকিয়ে রাখতে

ভালবাসি তোমায় ফেব্রুয়ারী ২০১৪

নীরব আস্ফালন

ক্ষোভ জানুয়ারী ২০১৪

শূন্যতায় সুখ

শুন্যতা অক্টোবর ২০১৩

দেশপ্রেম (ডিসেম্বর ২০১৩)

মোট ভোট ২৬ প্রাপ্ত পয়েন্ট ১.৯৫ পাপমুখে দেশপ্রেমের বুলি

ইসহাক খান
comment ১৭  favorite ০  import_contacts ৩৯৫
যখন দেশমাতা গেছেন সব তালিকার তলানিতে,
তখন নির্লজ্জ হাসি হেসে বলেছি,
“তলাবিহীন ঝুড়ি তো তলানিতেই থাকবে! উচিৎ হয়েছে!”

যখন দেশমাতার সোনালী শস্যক্ষেতে পঙ্গপাল হানা দিলে
কেঁদে মরেছে দরিদ্র বুড়ো চাষী,
তখন ঘৃণাভরে পাশ দিয়ে হেঁটে গেছি,
ছোঁয়াচ বাঁচিয়ে, পাছে গায়ে গায়ে লেগে যায়,
আর দূরে গিয়ে বলেছি,
“অস্পৃশ্য, অশিক্ষিত, মূর্খ, গেঁয়ো চাষার দল!”

যখন দেশমাতার সন্তানদের কীর্তি দেখে
লজ্জায় মাথা হেঁট হবার কথা,
তখন চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে,
টেবিলে চাপড় মেরে হা হা করে হেসেছি,
সবাইকে শুনিয়ে বলতে এতটুকু সংকোচ হয় নি,
“এই হল বাঙালি!”

আজ এই পাপমুখে বলতে বড় সংকোচ হয়,
“দেশমাতা! তোমায় ভালোবাসি”।
আমার মত ভণ্ড এবং নীচ দেশপ্রেমিককে
ক্ষমা কোরো, দেশমাতা!
তুমি তো আর গাল দিতে জানো না,
জানো না দূরে ঠেলে দিতে;
তুমি পারো শুধু ক্ষমা করতে, কাছে টানতে,
আর অক্ষম পাপিষ্ঠ সন্তানদের জন্য
যুগের পর যুগ প্রাণভরে কাঁদতে।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন