বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২৬ মে ১৯৮৭
গল্প/কবিতা: ৫৩টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৯

বিচারক স্কোরঃ ২.৫ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.৪ / ৩.০

তুই না হয় আর একবার কাছে ডাকিস

আমার আমি অক্টোবর ২০১৬

এ গল্পটা শুধু তোমায় নিয়ে

ঘৃণা সেপ্টেম্বর ২০১৬

ভুলে যাসনে!

এ কেমন প্রেম? আগস্ট ২০১৬

প্রিয়ার চাহনি (মে ২০১২)

মোট ভোট ১৩৬ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৯ বলা হয়নি

পন্ডিত মাহী
comment ৭০  favorite ১০  import_contacts ১,৩১৮
চার রাস্তার মোড়ে দাড়িয়ে
কতবার ভেবেছি,
বলেছি আর কোনদিন আসবো না।

তবু দ্বি-প্রহর কাটতেই মনকে প্রতারিত করি।
রোদ পালানো মেঘের নীচে দাড়িয়ে
মন ভাঙ্গা যন্ত্রণা গুলোর
পাল্টে যায় রঙ-
থেমে যায় উঠোন কুড়ানো অভিমান,
প্রাচীন নীড়ে এবার তাই দিয়েছি আগুন
নদীর এপাশে ওপাশে রেখেছি প্রহরী।
তবু ঐ চার রাস্তার মোড়ে দাড়িয়েই
শিরোনামহীন হয়ে গেছে
আমার এক একটি কবিতা।
রুপা সেদিনও আসেনি…

দূর বিকেলে রুপার কথা আর
এক পলক দেখার অপেক্ষা দীর্ঘকাল
পাশ কাটিয়ে জ্বলে থাকে।
বেনামি ফাগুন রোদে বুকপকেটের চিরকুট
নিরীহ ঘামে ভিজে যায়
অভিমানে।
উদাসী কার্নিশে এক টুকরো ঝুলন্ত বিকেল
উদ্বাস্তু,
বাড়ি ফিরবে না বলে চলে যায়।

তবু,
প্রতিদিন চেয়ে থাকি
ক্যান্টিন-করিডোরে, শহর জুড়ে, ঐ চৌরাস্তায়।
সবখানে আবার ঢেউ জাগে কোলাহলের,
কারো কিছু যায় আসে না। কোনদিন-
শুধু একটা চোরাস্রোত অজান্তেই কয়েক ফোঁটা জল
ছুঁড়ে দেয় আমার বাড়িফেরা চোখে চুপিচুপি।
রুপা কে বলা হয়নি,
চার রাস্তার মোড়ে এক থেকে একশ বছর
দাড়িয়ে এখনো রোদ মাখি হলুদ দুপুরে…
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন