বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ ফেব্রুয়ারী ১৯৭০
গল্প/কবিতা: ১৬টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৪৮

বিচারক স্কোরঃ ২.৮ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৬৮ / ৩.০

গো-বৎস

অসহায়ত্ব আগস্ট ২০১৪

চমক রিয়েল এস্টেট প্রাঃ লিঃ

পরিবার এপ্রিল ২০১৩

নেই কেন খরশোলা

পরিবার এপ্রিল ২০১৩

নতুন (এপ্রিল ২০১২)

মোট ভোট ৫৬ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৪৮ সেই - এই

আরমান হায়দার
comment ৩৬  favorite ২  import_contacts ৫৪১
জাগ্রত চৌরঙ্গী থেকে পূর্বদিকের রাস্তা ধরে
এগুলো ছেলে-মেয়ে দু'টো।
নেবার কথা ট্যাঙ্,ি মিটমাট হল না বলে
নিল দশ টাকা ভাড়ায় রিঙ্া।

আজ যাবে ওরা জয়দেবপুর বাজার হয়ে
শহরের উত্তর-পূর্ব দিকে রাজবাড়ির পেছনে।
ওখানে শ্মশান ঘাট । ছোট মরা নদী,
এক পারে গোটা কয়েক বটগাছ, নীচে
শ্মশানের পাশেই লালমাটির ঢিবি।

ওখানে গিয়ে বসলো দু'জন। কথা বললো
এটা-সেটা আরও কত কি। নদীর
ধার দিয়ে কয়েকজন লোক আসতে দেখেই
ছেলেটি উঠে দাঁড়ালো, বললো_
চল যাই।

সেই যে দু'জন গেল
এরপর অনেকদিন দেখা যায়নি
ছেলে মেয়ে দু'টোকে, জাগ্রত চৌরঙ্গীর
প্রশস্ত সড়কে অথবা শ্মশান ঘাটের
লাল মাটিতে।

তারপর বহুদিন পর কপালে সিঁদুর
মেয়েটিকে দেখা গেল অচেনা জনের সাথে ।
রাজবাড়ির পেছনের রাস্তায় মেয়েটি
চেনালো নতুনকে তার পুরোনো অতীত।
তার পর ধীরে ধীরে গিয়ে বসলো,
সেই শ্মশানের শান বাঁধা ঘাটে;
লাল মাটির ঢিবির পাশে।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন