বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২১ সেপ্টেম্বর ১৯৬৫
গল্প/কবিতা: ৫৩টি

সমন্বিত স্কোর

৪.০৮

বিচারক স্কোরঃ ২.০৮ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২ / ৩.০

কোথায় পাব তারে

প্রেম ফেব্রুয়ারী ২০১৭

ভালোবাসার অন্তরালে

ঘৃণা সেপ্টেম্বর ২০১৬

মন দোলা

ঘৃণা সেপ্টেম্বর ২০১৬

কবিতা - প্রতীক্ষা (অক্টোবর ২০১৬)

মোট ভোট ২০ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.০৮ সূতোর প’রে যে জীবন

রীতা রায় মিঠু
comment ১৫  favorite ০  import_contacts ১৬৬
এ ক্ষণে দাঁড়িয়ে আছি
জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে
দশ মাস দশ দিন যুদ্ধশেষে
জয় পরাজয়ের টানাপোড়েনে।


এ যেন এক সরু সূতোর চিকন রেখা
সূতোর প’রে দাঁড়িয়ে থাকা
সূতোর এ পাশে জীবন, ওপাশে মরণ।
হয় জয়, নয় পরাজয়
বাঁচা মরার বাহিরে আর কিছু নয়।

জীবন মৃত্যুর বাজীখেলা জেনেও
মরতে হলে মরবো মেনেও
সৃষ্টির নেশায়, সৃষ্টির আশায়
নারী রাখিছে জীবন বাজী।
একবার নয় বহুবার,
মা হয়েছে নারী কত শতবার
মা হওয়ার গরবে নারী মরণেও
হয় রাজী।
আমিও তেমনই এক নারী
তোকে পৃথিবী দেখাবো তাই
মরণকে ধরেছি বাজী।

এ আমার দ্বিতীয় দফার যুদ্ধ,
প্রথম দফার বাজী খেলায় ছিলাম নতুন
তোর আসার প্রতীক্ষায় জেগে ছিল
সারা দেহ তনু মন।
গভীর জঠরে আরাম কোচরে
কত স্বপনে কত যতনে কত আশায়
ধরে রেখেছিলাম তোরে।

আট মাস পেরিয়ে
আর দুটো মাস হাতে ছিল,
কী জানি কি হয়ে গেলো
দারুণ ঘূর্ণিতে সব কাঁপিয়ে দিল
সময়ের আগেই সূতোর প’রে
রাখতে হলো পা।

হঠাৎই পা ফসকে গেলো
কে কোথায় ছিটকে গেলো।
চারদিক ছিল আঁধারে ঢাকা
কোথাও ছিলনা আলোর রেখা।
যখন চোখ মেলেছি
আমি কোথায় তুইবা কোথায়
চারদিকে চেয়ে তোকেই খুঁজি
একটু একটু করে সবই বুঝি
যার আসার কথা ছিল এ ভুবনে,
ফাঁকি দিয়ে সে চলে গেলো মরণে।
সরু সূতোর প’রে যে জীবন, তা
হারিয়ে যেতে লাগে কতক্ষণ!
না পেলাম তোরে, না তুই আমারে
‘মা’ হওয়ার সাধ রইলো অপূর্ণ।



দু বছর পর এ ক্ষণে
ফের দাঁড়িয়েছি জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে
দশ মাস দশ দিন যুদ্ধশেষে আবারও
জয় পরাজয়ের টানাপোড়েনে।
এবার হারতে আসিনি, তোকেও হারাতে আসিনি।
সূতোর এপাশটায় জীবন, এটুকুই শুধু জানি।
আর ছাড়াছাড়ি নয়, মরণের পথেও নয়
জীবনে জড়িয়ে থাকবো দুজন।
মায়ের নয়নে থাকবি তুই, তোর নয়নে আমি
কেউ না জানুক জানবে অন্তর্যামী।

দশ মাসে্র প্রতি দিনে প্রতি ক্ষণে
তোকে নিয়ে রচেছি স্বপন ঘুমে
আর জাগরণে।
একবার হেরেছি, হারিয়েছি তোকে,
পণ করেছি লড়বো এবার, যতক্ষণ
না পেয়েছি তোকে।

এ যেন এক সরু সূতোর চিকন রেখা
সূতোর প’রে দাঁড়িয়ে থাকা, পা ফসকালেই
এদিক ওদিক।
সবই জানি তবুও জেগে রইবো আমি।

তুই আসবি তাই সেজেছে সবাই
সবুজ প্রান্তর সবুজে মাখা,
শরতের মেঘ নীল সাদায় আঁকা
কাশবন সাদা ফুলে ফুলে ঢাকা
বলাকারা সব মেলেছে পাখা।

নারী ও প্রকৃতি তৈরী, সরু সূতোটাকেও
আজ লাগছেনা বৈরী
জীবন মৃত্যুর এই বাজীখেলায়
আজ জিতবো আমি, দেখবে সবায়।
ভুবনভরা আলো দেখে তুই কাঁদবি যখন
তোর কান্নায় হাসবো আমি, হাসবে ত্রিভুবন।



আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন