বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২ অক্টোবর ১৯৭০
গল্প/কবিতা: ১৩টি

গোধূলি বেলার চোর

ঘৃণা সেপ্টেম্বর ২০১৬

ভবের মৃত্যুযজ্ঞ

বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী নভেম্বর ২০১২

নিষ্পাপ সারল্য

সরলতা অক্টোবর ২০১২

মুক্তিযোদ্ধা (ডিসেম্বর ২০১২)

জেগে উঠ্ আরেকবার

জাফর পাঠান
comment ২৮  favorite ২  import_contacts ৪৯৭
ওরে ঘুমন্ত মানবের দল্
জেগে উঠ্ আরেকবার-
চেয়ে দেখ্ আজি খুনিদের তান্ডবে
চারিদিকে শুধু সন্তানহারা মায়ের কান্না,
স্বামীহারা বিধবা আর পিতৃহারা এতিমের কান্না।

ওরে শ্রোতা দর্শকের দল্
মোহ ভেঙ্গে গর্জে উঠ্-
দেখ্ মুখের ভাষা কেড়ে নিয়েছে ওরা
প্রতিবাদী আর ধর্ষিতের রক্তে রঞ্জিত হচ্ছে জনপদ,
ভিন্নস্রোতে ঘুরিয়ে দেয়া হচ্ছে অধিকার আদায়ের গতিপথ।

ওরে শোষিত অত্যাচারীতের দল্
ভয় ঝেড়ে হুঙ্কার দিয়ে উঠ্-
তোদের রক্ত,ঘাম,শ্রম চুষে নিচ্ছে ওরা
দিচ্ছেনা শ্রমানুযায়ী মুজুরী,দিচ্ছেনা অধিকার,
ক্ষমতার জোরে ওরা কেড়ে নিচ্ছে ন্যায্য স্বাধীকার।

ওরে গৌরবান্বিত বাঙ্গালীর দল
উঠ্ চেতনাকে জাগিয়ে উঠ্-
চেয়ে দেখ্ আজি মাতৃভুমির একি হাল্
মুষ্ঠিমেয় অপদার্থের কাছে জিম্মি সারা জাতি,
ওদের কাছে স্বাধীকারের দাবী যেন মিথ্যার বেসাতি !

ওরে অপরাজেয় মুক্তিযোদ্ধার দল
ফের জাতিকে জাগিয়ে তোল্-
বলে দাও- চেয়েছিনু দেশ ও মানবের স্বার্থোদ্ধার
ছিলাম সংকল্পিত দাবী আদায় করবোই করে নাজেহাল,
যেথায় থাকবেনা হানাহানি আর খুনাখুনি,থাকবেনা আকাল্।

ওহে স্বাধীনতা আদায়কারীর দল্
তুলে দিয়ে যাও জগদ্দল্-
বলো-শোষনের বিরুদ্ধে রুখে দাড়িয়েছিলাম বলে
পেয়েছি স্বাধীনতা,পেয়েছি ভাষা,পেয়েছি শুভানুধ্যায়ী,
শোষককে পরিয়েছি কলঙ্কময় তীলক,হয়েছি মৃত্যুঞ্জয়ী।

ওহে গর্বের কালজয়ী যোদ্ধার দল্
জাগিয়ে দিয়ে যাও বল্-
যেন হুঙ্কারে আকাশ বাতাস,রাজপথ কম্পিয়ে
ঝাঁপিয়ে পড়ে সবাই মানব স্বাধীকারের সংগ্রামে
শোষকের মাথা যেন করে দেয় চূর্ণ জীবনের তরে, নবোদ্যমে।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন