বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২ অক্টোবর ১৯৭০
গল্প/কবিতা: ১৩টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৪৮

বিচারক স্কোরঃ ২.৮ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৬৮ / ৩.০

গোধূলি বেলার চোর

ঘৃণা সেপ্টেম্বর ২০১৬

জেগে উঠ্ আরেকবার

মুক্তিযোদ্ধা ডিসেম্বর ২০১২

ভবের মৃত্যুযজ্ঞ

বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী নভেম্বর ২০১২

বাবা (জুন ২০১২)

মোট ভোট ৬৭ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৪৮ বাবা,- আমি দেখেছি

জাফর পাঠান
comment ৫৪  favorite ০  import_contacts ৫৫৬
শৈশবে সবেমাত্র যখন আমি বুঝতে শিখেছি
স্মরণের পাতায় নবরূপে স্মৃতি জমা সবে শুরু,
বাবা সেই সময়ের কথা বলছি
হতবাকে তোমায় ভালবেসেছি।
বাবা,-আমি দেখেছি!

তুমি আমার জন্মদাতা পিতা,ধরার আশ্রয়দাতা
ধরণীর সমস্ত বৃক্ষরাজি মিলে যেথায় হয়েছে বৃথা,
সেথায় সর্বেসর্বা তোমার পিতৃছায়া
কেমনে ভুলিবো আমি তোমারি মায়া।
বাবা,-আমি দেখেছি!

পরিশ্রান্ত দেহ নিয়ে কর্মক্ষেত্র থেকে যখন ফিরতে
মোদের দেখে উবে যেত তোমার যত শত ক্লান্তি,
দুহাত বাড়িয়ে কোলে তুলে নিতে
ভরিয়ে দিতে গাল শত চুমুতে।
বাবা,আমি দেখেছি!

তুমি যখন খেতে বসতে আমাদের সাথে পাশে
আমাদের চাহিদা পুরিয়ে তব শুরু করতে তুমি,
সেরাটি দিতে আমাদের পাতে
কত ইনিয়ে বিনিয়ে খাওয়াতে।
বাবা,-আমি দেখেছি!

কষ্টার্জিত স্বল্প আয়ের ভিতর কেটেছে তোমা জীবন
কত চড়াই-উতরাই পেরিয়েছো তুমি কঠিন এ ভবে,
তবু আগলিয়ে রেখেছ বুকের ধন
বুঝতে দাওনি তোমার বিষণ্ণ মন।
বাবা,-আমি দেখেছি!

মন রক্ষায় কত আবদারের পরিপূরক তুমি
নিজকে বিলিয়ে যুগিয়েছো তা,বুঝিনি তখন,
অবুঝ মনের ঐ অত্যাচার
তোমাকে কত করেছে জর্জর।
বাবা,-আমি দেখেছি!

যৌবন পেড়িয়ে তুমি এখন অক্ষম,হয়েছো শিশু
জীবন নিংড়ানো নির্যাস সবই দিয়েছিলে ডেলে,
নিজের জীবন দিয়েছো বিলিয়ে
শুধুই সন্তান পাণে তাকিয়ে।
বাবা,-আমি দেখেছি!

বাবা-শিশুতে ছিলাম অসহায় তখন তুমি ছিলে সহায়
ভয় নেই বাবা শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে করবো তোমায়,
যদি না করি তবে হব অভিশপ্ত
জ্বলে পুড়ে অঙ্গার হব জীবন্ত দগ্ধ।
বাবা,-হতে দিবো না তা।।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন