বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ মার্চ ২০১৯
গল্প/কবিতা: ৪৮টি

সমন্বিত স্কোর

৪.২৫

বিচারক স্কোরঃ ২.৪৫ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৮ / ৩.০

যূপকাষ্ঠ

ক্ষোভ জানুয়ারী ২০১৪

আমি এক বিবর্ণ ফুল

আমি নভেম্বর ২০১৩

যুগে যুগে পুরুষকে নারী

শুন্যতা অক্টোবর ২০১৩

গ্রাম-বাংলা (নভেম্বর ২০১১)

মোট ভোট ৭৫ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.২৫ ভুলি নাই সেই গ্রামটিরে আমার

ডাঃ সুরাইয়া হেলেন
comment ৬৬  favorite ৬  import_contacts ৭৯৬
আসিয়াছি আমি,আসিয়াছি আবার
দেখিতে আমার পল্লী গ্রামটিরে,
আসিয়াছি আমি সেই নদীটির তীরে!

ক্ষেত,মাঠ- ঘাট, বিল- প্রান্তর শুয়ে আছে
নিবিড় মমতায় করিছে আলিঙ্গন
একের সাথে অপরের স্নেহের বন্ধন!

ফলিয়া আছিল ধানের ছড়া
উড়িতেছে কত পাখ-পাখালি পায়রা
কেউবা কাটিয়া নিয়াছে ধানের পসরা!

ক্ষেতের আ’লে দাঁড়িয়ে আছে
সেই পুরাতন আমগাছ সারি সারি
রাখাল কোন এক বসিয়া আছে
ইহাদেরি ছায়ায়,এক রূপকথার
রাজকন্যার লাগি,বাজাইছে বাঁশিটি তারি!

বিলের পানিতে মাছ মারিতেছে ঘাঁই,
বাঁশের কঞ্চি এক বাঁকা হয়ে আছে
ঝিলের পানিতে কোন এক কাদাপানির দেশে,
তাহার ওপরে দুলিতেছে মাছরাঙা এক
রঙিন স্বপ্ন পাখায় মেখে,ঠোঁটে নিয়ে মীনেরে শেষে!

বউটির সাথে ছোট শিশুটি করিছে সিনান,
ঘাটের পারে রাখিয়াছে ছড়ায়ে
কলসী,বাসন-কোশন,রঙিন কাপড় তার!
ছিটাইতেছে জল দুই কিশোরী সখি একে অপরে,
হাসিতেছে,ডুবিতেছে,ভাসিতেছে আর!

বাড়ির বাহিরে খড়ের গাদায়
গড়াইতেছে শিশু এক ধূলাবালি মাখি
লেবু ফুল ফুটিয়াছে,গন্ধে করিছে মাতোয়ারা
খেজুর গাছে ঝুলিতেছে হাঁড়ি
কেউ বুঝি বাঁধিয়া রাখিছে রসের লাগি!

ভিতর বাটিতে বাঁধানো কুয়ার উপরে
ঝুঁকিয়া পড়িয়া বালতিতে দড়ি বাঁধি
পানি ঐ তুলিতেছে কোন এক বধূ
আরো ঝুঁকিয়া কিশোরী ননদিনী
হাসিয়া গাহিয়া শব্দ করিতেছে বারবার
প্রতিধ্বনি শুনিবারে শুধু!

গোয়ালের বাহিরে গরুগুলি গামলায়
খাইতেছে খইল আর ভূষি,
উঠানে ধান শুকাতে দিয়া
কঞ্চি হাতে পাহারা দিতেছে
বুড়ি দাসী বুঝি!

সন্ধ্যা আসি ঘনাইতেছে এই গ্রামটির
ভিতর বাটির উঠোনে উঠোনে,
মাদুর বিছায়ে পড়িতেছে পুঁথি
চশমা চোখে দাদীজান সুরে সুরে!
ইউসুফ- জুলেখার কাহিনী শুনাইতেছে
চোখ দিয়া ঝরিতেছে পানি
বলিতেছে জুলেখার করুণ সুরে,
‘কলেজা মে লাগাও ছুরি নিকাল যাও’
বুঝিবা সেই কয়েদী ইউসুফেরে!

ভুলি নাই আমি,ভুলি নাই
সেই গ্রামটিরে আমার
আসিয়াছি আমি,আসিয়াছি তাই
তাহার নিকটে,ইহারেই দেখিবারে আবার!
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • নিলাঞ্জনা নীল
    নিলাঞ্জনা নীল চমত্কার..........
    প্রত্যুত্তর . ৩০ নভেম্বর, ২০১১
  • ডাঃ সুরাইয়া হেলেন
    ডাঃ সুরাইয়া হেলেন অনেক ধন্যবাদ নীল ।ভালো থাকবেন ।
    প্রত্যুত্তর . ৩০ নভেম্বর, ২০১১
  • rakib uddin ahmed
    rakib uddin ahmed আমি গ্রামান্চলে বসবাস করিনি।গ্রাম বলতে যতটুকু জানি -তা সব মিলিয়ে
    দেড়-দু'মাস(উত্তরবঙ্গ আর ময়মনসিংহ),আর বই,পেপার-এতটুকুই।তবে আপনার কবিতার ফ্রেমে চমৎকার প্রষ্ফুটিত হতে দেখেছি গ্রামের চিত্রকে এক নজরেই।এবং কবিতাটি নিশ্চই ছিলো অনেক শ্রমসাধ্য।ধন্যবাদ
    প্রত্যুত্তর . ১৩ ডিসেম্বর, ২০১১