বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১৭ আগস্ট ১৯৭৭
গল্প/কবিতা: ৭৫টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

২০

চিঠির গল্প.........

প্রেম ফেব্রুয়ারী ২০১৭

ভালবাসার কাব্য.....

প্রেম ফেব্রুয়ারী ২০১৭

স্বপ্নগুলো সেই রয়ে গেলো অধরা.....

কি যেন একটা জানুয়ারী ২০১৭

ভোর (মে ২০১৩)

মোট ভোট ২০ প্রতিটি ভোরই যেনো আসে গরীবের ঘরে আলো হয়ে.........

এই মেঘ এই রোদ্দুর
comment ১১  favorite ০  import_contacts ১,৮৭৯
চলমান জীবনের প্রভাতগুলো
আর রাঙিয়ে উঠে না
ভুলে গেছি সুন্দর প্রভাত
ঘুম থেকে উঠেই চোখজোড়া
চলে যায় টিভির পর্দায়,
এই বুঝি পাওয়া গেলো প্রাণের সন্ধান
এই বুঝি ফিরে ফেলো একজন আপনজন
তার পরমাত্মীয়দের সান্নিধ্যে আসল বুঝি এই
বোবা চোখে ঝরছে আনন্দাশ্রু
মুখে নেই ভাষা।
আহারে এত আর্তনাদ
জীবনের কোনো প্রভাতেই বুঝি কানে বাজেনি,
এরকম প্রভাতে চোখ বুঝি দেখেনি ক্ষত বিক্ষত লাশের পাহাড় ।
প্রভাতে এলোমেলো বাতাসে যেনো ভেসে লাশের গন্ধ,
আকাশজুড়ে নিস্তব্ধতা বিরাজমান।
দুষিত বাতাস দুষিত মন আজ,
ভোরের স্নিগ্ধতায় নিজেকে পারি না রাঙ্গাতে
সবুজের সজীবতায় মনে আনে না উচ্ছ্বাস
দিনভর কাটে উৎকণ্ঠায়
আর জানি কতজন আছেন বেঁচে
কতক্ষণই লড়বেন মৃত্যুর সাথে।
বর্তমানের ভোরগুলি এভাবেই কাটে,
চিন্তা চেতনায় শুধুই সাভার ট্রাজেডি।
ভোরে আলোতে খবরের কাগজ হাতে নিয়ে
নি:শব্দে ঝরাই অশ্রু,
টিভির পর্দায় চোখ গেলেই
টপ টপ করে পরে চোখের পানি।
আহ, স্বজনদের চোখের পানি গেছে শুকিয়ে
গলার স্বর গেছে বসে,
এত দু:খ কেনো তুমি দিলে মাবুদ
অসহায় মানুষগুলোকে।
যারা আমাদের লজ্জা করে নিবারণ
আজ এই লজ্জা রাখি কোথায়।
যারা নিজের স্বার্থ চরিতার্থ করতে
গরীবদের উপর খাঁটায় জোড়,
রক্তচোষা জোকের মতই পিচ্ছিল এরা
শেষ না হওয়া পর্যন্ত আঁটার মত লেগে থাকে গাঁয়ে।
এসব অর্থলোভী, নরপিশাচ, পাষণ্ডদের
বিচার চাই।
আর কোনো ভোরে যেনও শুনতে না হয়,
কান্নার রোল আর আর্তনাদ
পত্রিকা খুলেই যেন দেখতে না হয় বীভৎস লাশের ছবি।
আমার সোনার দেশের প্রতিটি ভোরই যেনও আসে
গরীবের ঘরে আলো হয়ে।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন