বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১০ মে ১৯৯৪
গল্প/কবিতা: ৫টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

চেতনায় প্রেম

কি যেন একটা জানুয়ারী ২০১৭

উজ্জ্বলনিশানা

কি যেন একটা জানুয়ারী ২০১৭

আমার সকাল

আমার আমি অক্টোবর ২০১৬

গল্প - এ কেমন প্রেম? (আগস্ট ২০১৬)

প্রকৃত অর্থে রাজনীতি

আওসাফ অগ্নী
comment ২  favorite ০  import_contacts ১১৯
রাজনীতি মানে আমরা বুঝি বোধয় বিশাল কিছু। সংগঠন,নেতা,অনেক সদস্য আর তাদের অধীনে আপামর জনতা। রাজনীতি মানে আসলে বুঝায় রাজার নীতি। কিন্তু এটি আজ সমাজের অনেক ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয়। এ বিষয়ে আমার একটি গল্প নিচে লিখলাম।
যশোরের সীমান্ত এলাকায় একটি গ্রামে মল্লিকদের বাস।মল্লিক পরিবার ঐ এলাকায় বেশ প্রভাবশালী।এখানে আশরাফ হোসেন মল্লিকের ৪ ছেলে, ২ মেয়ে।২ মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। তারা আশরাফ মল্লিকের পরের পক্ষের।প্রথম পক্ষের ২ ছেলে বিদেশে চাকরি করে। ১ জন খুলনায় থাকে।এই তিন ছেলে বিবাহিত। অবিবাহিত ছেলেটি গ্রামে থাকে।সে গ্রামে পড়াশুনা করে।
ছেলেটির নাম কামাল। সৎ মায়ের সংসারে সে অতটা প্রিয় নয়। আবার তার বাবাও বেঁচে নাই। আশরাফ সাহেবের বউয়ের শরীর অতটা ভাল নয়।তার নাম সারা মল্লিক। তাকে একজন ডাক্তার দেখেন।সেই ডাক্তারের নাম বদি রহমান। বদি আবার সারার বোনের ছেলে। সারা তাই বদিকে খুব ভালবাসে। এমনকি সম্পত্তির ভাগ দিতে চায়। বদি খুব চালাক। সে শুধু তার খালাকে খুশি করে আর কামালকে তার সৎ মায়ের চোখে খারাপ করে।নিজে খালার টাকা চুরি করে তা কামালের ঘাড়ে চাপায়।

আশরাফ সাহেব কিন্তু কোন সম্পত্তি বদিকে দেন নাই। কিন্তু সারা চাই তার বোনের ছেলে কিছু ভাগ পাক।বদি একটা প্ল্যান করল। সে কামালকে বলল তোমার সম্পত্তি আমাকে দিয়ে দাও। তুমি ত পড়াশুনা কর। তোমার পড়ার জন্য টাকা লাগবে।আমার যা টাকা আছে তা দিয়ে তোমার সম্পত্তি তোমার সম্পত্তি কেনা যাবে।আমি তোমাকে আসল টাকার সাথে সুদও দেব। কামাল সহজ সরল। সে রাজি হল।
কামাল প্রতি মাসে টাকা চাই। সে আসল তাকায় পুরোপুরি পায় না। আজ দিব কাল দিব বলে বদি তাকে তাকা দেয় না।কামাল ভাবল এবার একটা।প্রতিবাদ করবে।বদি তা বুঝে ফেলল।সে আরও একটা প্ল্যান করল। ঐ গ্রামে এক পাগল ছিল।নাম তার কানায় পাগল।তাকে রাগালে সে চরাও হত। কানায় রাতে ঘুরে বেরাত।একদিন বদি কামালকে জড়িয়ে কানায়ের বউয়ের নামে কিছু জঘন্য কথা কানায়কে বলল।এতে কানায় কামালের উপর রেগে গেল।
বদি কানায়কে বলল কামাল রাতের বেলা জামতলা দিয়ে একা একা আসে। ঐ জায়গায় তাকে খুন করতে হবে। কামাল যখন ওদিক দিয়ে আসছিল তখন কানায় কাস্তে নিয়ে দৌড়িয়ে আসলো। কামাল দৌড়ে পালাতে লাগলো। সে পালাতে পালাতে সীমান্ত এলাকায় চলে গেল।তখন চারদিকে অন্ধকার।কামাল ভুল করে কাটা তার অতিক্রম করল।তার হাতে তখন ছিল ছোট বস্তা। বস্তায় ছিল কিছু পরিমাণ ময়দা।বি.এস.এফ তাকে চোর ভেবে গুলি করল।সে মারা গেল।এভাবেই বদির নোংরা রাজনীতির কারণে কামাল প্রাণ হারাল অকালে।

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন