বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ জানুয়ারী ১৯৯৩
গল্প/কবিতা: ১৫টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

মুক্তপ্রাণ অথবা কথকের গল্প

কি যেন একটা জানুয়ারী ২০১৭

অর্ধজন্মের অর্ধমানব

উপলব্ধি এপ্রিল ২০১৬

শকুন্তলা আর এক বাউন্ডুলে

উপলব্ধি এপ্রিল ২০১৬

কবিতা - অধরা (জানুয়ারী ২০১৭)

জোৎস্নাপন্থী বিপ্লব

তুহেল আহমেদ
comment ১  favorite ০  import_contacts ১৪১
আজকের সন্ধ্যার আকাশ গলে নেমেছিল এক ঝাঁক নিয়ন আলো
জানালার বেঁকে যাওয়া গ্রিলের ধুলো মাখা পটে
নিষ্পাপ ধূষর বর্ণদের মিছিলে
মিশে ছিল চুপিসারে এক সমুদ্র কালো জল।
বাকহীন কিছু ব্যর্থ সংলাপের অগোচরে পড়ে থেকেছিল
বিক্ষিপ্ত কয়েক শব্দ বাক্য,
অদৃষ্টবাদী ইন্দ্রের অদৃশ্য ইঙ্গিতে
গোচর হয়ে উঠতে পারেনি যা কোন কালে!
ক্ষয়ে যাওয়া ইটের ছত্রাকের শহরের চাপে
চাপা পড়া বর্ণহীন আলোর শাখা প্রশাখা জুড়ে বয়েছিল
অগোছালো জোৎস্নাপন্থী বিপ্লব বা বিক্ষোভ সমাবেশ!
সাম্যবাদী সোভিয়েতিরা 'কমরেড' উপাধি দিয়েছিল সেই সব বিপ্লবীদের
যাদের স্বাগত ভাষণের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার সংকল্পে
নকশালিরাও থেমে থাকেনি।
তবু দিন শেষের নক্ষত্র রাত্রিতে আকাশ জুড়ে
থেকেছিল গুটি কয়েক তারা আর এক অপার শূন্যতা।
সাম্যবাদী? সোভিয়েতি? নকশালি?
ইটের পর ইট এসে ঢেকে দিয়েছিল সন্ধ্যার আকাশের সকল জোৎস্না আর
বেড়ে চলছিল ছত্রাকদের শহরের পরিধি।
আজও বসে বাকহীন সংলাপ, আসে অদৃষ্টবাদী ইন্দ্রের ইঙ্গিত
স্বাগত ভাষণে আসে শুভার্থী সাধুরা,
সাম্যবাদী! সোভিয়েতি! নকশালি!
বেড়ে চলে ছত্রাকদের সবুজ শহরের পরিধির সীমা।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • কাজী জাহাঙ্গীর
    কাজী জাহাঙ্গীর বেশ লেখার হাত আছে দেখছি, কিন্তু পাঠক নাই, কারন কি তুহেল? কারন একটাই, আপনিও ঘর থেকে বেরুচ্ছেন না, অন্য লেখকদের পাতায় যাচ্ছেনা। আসলেন যখন অন্তরঙ্গতা তে জমাতে হবে তাই না, গল্প কবিতায় স্বাগতম, আপনার জন্য অনেক শুভকামনা আর আমার পাতা আমন্ত্রণ।
    প্রত্যুত্তর . ৯ জানুয়ারী, ২০১৭