বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২০ নভেম্বর ১৯৮৯
গল্প/কবিতা: ৭টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

বর্ষায় বাংলা

বাংলার রূপ এপ্রিল ২০১৪

উত্তর খুজি আমি!!

আমি নভেম্বর ২০১৩

নাগিনীর প্রেম-এ পুড়ছি

শুন্যতা অক্টোবর ২০১৩

আমি (নভেম্বর ২০১৩)

মোট ভোট আমি ও স্বপ্ন !!!

গিয়াস মোহন
comment ৬  favorite ০  import_contacts ৪৭৯
ঝরনা সর্বদাই তাঁর নিজস্ব বৈশিষ্ট্য বজায় রাখতে চায় , সেই সাথে উৎপল মনের অধিকারীরা ঝরনার সুন্দরযে অনাবিল আনন্দে তার মঙ্কে প্রফুল্ল করতে ঝর্ণার পানিতে হাত দিয়ে চুয়ে দেখতে ও সেই আনন্দে অংশীদার হতে সামান্য ও ত্রুটি করে না । যেহেতু সেথায় রয়েছে ব্যাথা ও আনন্দের এক বাস্তব সংমিশ্রন। অনুরূপ, ফুলওঁ সবার কছে গ্রহণীয় ফুলের মিষ্টি ঘ্রানে মগ্ন হয়ে মানুষ হারিয়...ে যায় জীবনের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে, উপভোগ করতে থাকে ফুলের সুন্দরজকে, আর কিছুক্ষণের জন্য হলেও ফুলের সুন্দরজে নিজেও বিকশিত হওয়ার স্বপ্ন দেখে। কিন্তু আআআবাবাবারর ভাবনায় স্বপ্নের গতিকে থামিয়ে দেয় বলে দেখে ......বাস্তবতা সেতো অন্ননেক দূর!!! হটাৎ, আবার অমানিশা এসে পনের দিনের পরিপূর্ণ চাঁদকে অন্দকারছন্ন করে পেলে!! এভাবেই জীবন আর বাস্তবতা তার নিজস্ব গতিতে চলতে থাকে! আসলেই আমাদের যা , তা সবই এক মাত্র বিধাতাই ঠিক করে রাখছেন, আর আমরা যত চেষ্টা আর সাধনাই করি তা শুধুই প্রশান্তির প্রতিফলন ছাড়া আর কিছুই নয়! তবু স্বপ্ন দেখেই নিজেকে বুঝতে হয়, জানতে হয় নিজের ভিতর লুকিয়ে থাকা সেই টগভগে মনটাকে, এতাই মানুষের অনন্য বৈশিষ্ট্য !! হটাৎ , এই ফেসবুকে বসে আমার কি হল!! জীবনের এই ছোট্ট চাহিদার জন্য আমি কি করছি?? আমার মন বলে আমি ঠিকি করছি!! কারন মন এমন একটা উষ্ণ পাথরের ন্যায়, যে পাথর অবলিলায় গ্রহন করতে প্রস্তুত স্পর্শ্‌ ... হউক সে টা বেদনা বিধুর কষ্টের মহা সমুদ্রের হিংস্র থাবা,যেখানে প্রবেশ মাত্রই পাবে নিরন্তর এক মহা দুর্যোগ, হউকনা সেটা আরও আরও ভয়ংকর!! তবু সে যাবেই যাবে। স্বপ্ন দেখে বুক ফুলিয়ে যাবেই নিচ্ছিত পরাজয়কে বিজয়ে পরিনিত করতে!! আর তার সেই ললনাকে সে দুর্যোগ থেকে তুলে আনবেই যার ছায়ায় সে হবে সর্ব সুখি! মাধুর্যময় সেই মন আকাশের ডায়মন্ডকে, যার পরশে হৃদয়ের ১০০ ডিগ্রি শুন্য ০ ডিগ্রিতে টার্ন করে সেই আমাবস্যা তিথিকে! সত্যি বলতে কি সেই পাগলাটে মনটা বিশাল স্বপ্নের জোরে সব কিছু পিছনে ফেলে যেই মাত্রই বিজয়ার কাছে যায় তার ভালবাসার স্পর্শ নিতে, ঠিক তখনই সে দেখে তারও হাজার বছর আগে বিজয়ার মন বিক্রি হয়ে গেছে অতল সমুদ্রের সেই বিজয়ের কাছে!! বেচারা মন তখন যেন কষ্ট , শোকে , অসিম বেদনায় বিহব্বল হয়ে বলে... হে প্রভু আমার উপরে তুলে নাও আমি মৃত্যুই এখন এক মাত্র কামনা!!!!! কথাটা বলতেই তাঁর স্বপ্ন ভেঙে যায়, তখন কোল বালিশটা উপড়ে চুপটি করে বিচানার মধ্য কোনে, বাজপড়া মানুষের মত নীরবে বসে থাকে দি...র...ক্ষন!! হটাৎ আচমকা শব্দে মনটা সহজ হলে সে নিজকে নিজে বলে বলে .................. ওহ শিট ...ইটস নাথিং, জাস্ট ড্রিম !!!!!!!!!!!! হা হা হা!
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন