বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২ এপ্রিল ২০১৯
গল্প/কবিতা: ৩২টি

সমন্বিত স্কোর

৩.৮৫

বিচারক স্কোরঃ ১.৬৩ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.২২ / ৩.০

অভিশপ্ত প্রেম

উপলব্ধি এপ্রিল ২০১৬

অন্তর্দেশে রক্তক্ষরণ

ত্যাগ মার্চ ২০১৬

স্বাধীনতার সংজ্ঞা

ত্যাগ মার্চ ২০১৬

শীত / ঠাণ্ডা (ডিসেম্বর ২০১৫)

মোট ভোট ৪৮ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৩.৮৫ শীত আসে শীত যায়

মোহাম্মদ সানাউল্লাহ্
comment ২০  favorite ২  import_contacts ৫৯৩
শীতের আমেজ অনেকেরই বড় প্রিয় !
পউষ-মাঘের সকাল, বিকেল, রাতে
কত পিঠা-পুলি ! লেপের আদরে
ঘুম চেপে বসে অলস প্রভাতে ।

ঘুম থেকে জাগে সকালের রবি
দিগন্ত জুড়ানো কুয়াশাকে করে ভেদ,
ছায়া ঘেরা গ্রাম তখন ও ঘুমায়
সূর্য্য উঠার আগে চাষী পায় ক্ষেত ।

গাঁয়ের বধুরা আড়মোড়া ভেঙ্গে জেগে
কেউ গড়ে পিঠা, কেউ করে ইবাদত,
শাড়ীর আঁচল কোমড়ে পেঁচিয়ে
শুরু করে নিয়ে শাশুরীর অভিমত ।

শীতের সকালটা জমে খেজুরের রসে
ঠান্ডা রুখিতে চাদরে মুড়িয়ে চলে,
তারপর ও শীত কাবু করে ঢেড়
শীত তাড়াতেই অনেকে আগুন জ্বালে ।

ভাপা পিঠা বেশ জনপ্রিয় শীতে
মুখ-রুচি বাড়ে বিল সাপটানো মাছে,
পথকলি যারা শীতে কাঁদে তারা
আড়ষ্ট শিশুরা ঘেঁষে জননীর কাছে ।

কুয়াশা মাড়িয়ে ক্ষুধার তাগিদে
পশু-পাখি করে আহারের সন্ধ্যান,
শীত যত বাড়ে-বাড়ে জনপদে
বিয়ে-সাদী সহ আরও কত আয়োজন ।

কখনও কখনও অসুখে-বিসুখে
অসহায় মাঝে ঘটে যায় মহামারী,
শীতের প্রকোপে অভাবীরা মরে
গ্রাম আর গঞ্জে বেড়ে যায় আহাজারী ।

শীত যবে আসে বাঙালীর দ্বারে
উঠোণ জুড়িয়া জমে মেলা, জাড়ি-সারি,
নাগর দোলায় চড়ে শিশু-নারী
চলে উৎসব বাঙালীর বাড়ী-বাড়ী ।

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন